ওয়ার ক্রাইয়ের প্রত্যুত্তর হল ওয়ার ক্রাই, নারা-এ – তকবীরের প্রত্যুত্তর হল জয় শ্রীরাম

১৪০০ বছর ধরে আমাকে বলা হচ্ছে তুমি কাফের, তুমি মুশরিক, তুমি মূর্তিপূজক। অত‌এব তুমি ঘৃণ্য, তুমি হীন, যতক্ষণ পর্যন্ত না তুমি আমার পথ অনুসরণ করছো, ততক্ষণ তোমাকে ধ্বংস করাই আমার কর্তব্য। শুধু বলা হয়েছে এমন নয়। ৭১২ সালে রাজা দাহিরের পতন থেকে শুরু করে আজ, এই মুহূর্ত পর্যন্ত আমার স্বজাতির উপরে আমার এই স্বভূমির উপরে এই ভাবধারার বাস্তবায়ন ঘটে চলেছে। অথচ ধর্মনিরপেক্ষতার নামে, সংখ্যালঘুদের অধিকারের নামে, ফ্রিডম অফ এক্সপ্রেশনের নামে এই অসহিষ্ণুতাকে কেবলমাত্র প্রশ্রয় দেওয়া হয়েছে তা নয়, বরং প্রচ্ছন্ন সমর্থন দেওয়া হয়েছে। আজ এই অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর সাথে সাথে আমার বিরুদ্ধে অসহিষ্ণুতার অভিযোগ এনে চতুর্দিকে হুক্কাহুয়া শুরু হয়ে গিয়েছে? এই ভন্ডামি চলবে না।

গোটা পৃথিবী জুড়ে অসংখ্য বোমা বিস্ফোরণ, অসংখ্য কোতল, অসংখ্য দাঙ্গার সাথে জড়িত “নারা-এ – তকবীর//আল্লা হু আকবর” স্লোগানটিকে কোনদিন আপনাদের ওয়ার ক্রাই বলে মনে হয় নি। আজ আত্মরক্ষার তাগিদে যখন হিন্দু যুবসমাজ “জয় শ্রীরাম” বলে রুখে দাঁড়িয়েছে, ওমনি চারদিকে গেল গেল রব! বলি, এতদিন ধরে ভারতে দারুল ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য ওরা যে এই মাটির উপরে একটা যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে, দেশটা ভাগ হ‌ওয়ার পরেও আপনারা তা বেমালুম অস্বীকার করে যাবেন? কীসের বুদ্ধিজীবী আপনারা? আপনারা স্বীকার করুন বা না করুন, এটাই সত্য যে We are in a state of war । আর যুদ্ধের প্রত্যুত্তর হল যুদ্ধ। ওয়ার ক্রাইয়ের প্রত্যুত্তর হল ওয়ার ক্রাই। নারা-এ – তকবীরের প্রত্যুত্তর হল জয় শ্রীরাম।

আপনারা মনে করেন সায়নী ঘোষের মত প্রকাশের অধিকার আছে কিন্তু সেই মতের বিরুদ্ধাচরণ করার অধিকার কার‌ও নেই। কেউ প্রতিবাদ করলেই আপনারা খাপ পঞ্চায়েত বসাতে শুরু করে দেবেন সর্বত্র? জেনে রাখুন, আপনাদের এই একপেশে ‘সহিষ্ণুতা’ থিওরির দাম আজকে পুরোনো হাজার টাকার নোটের সমান।এক সিপিএম নেতাকে দেখলাম বেদ উপনিষদের ভিত্তিতে হিন্দুদের সহিষ্ণুতা শেখাচ্ছে! শালা সারা জীবন লড়াই লড়াই লড়াই চাই বলে আজকে সহিষ্ণুতা? সারা জীবন মালিকের সাথে শ্রমিকের সংঘাতের ভিত্তিতে রাজনীতির রুটি সেঁকে আজকে সহিষ্ণুতা? মরিচঝাঁপি থেকে সাঁইবাড়ি পর্যন্ত অসংখ্য নৃশংস হত্যাকাণ্ডের হোতা হয়ে আজকে সহিষ্ণুতা? পাড়ায় কেউ সিপিএম ছাড়া অন্য পার্টি করলে তাকে ভাতে এবং হাতে মারার ইতিহাস সৃষ্টি করে আজকে সহিষ্ণুতা?হিন্দু যুবসমাজের প্রতি আমার আবেদন, এই ভন্ডদের কথার মারপ্যাঁচে পড়ে অ্যাপোলজেটিক হবেন না। ইঁটের জবাব পাথর দিয়ে দেওয়ার সংকল্প দৃঢ় করুন। যুদ্ধক্ষেত্রে সহিষ্ণুতা মানে আত্মহত্যা।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s